Gyneacology
Sananda fashion

স্ট্রেস এবং প্রেগনন্সি

প্রেগনন্সিতে স্ট্রেস প্রভাব ফেলতে পারে। কনসিভ করার আগে এবং পরে চেষ্টা করবেন স্ট্রেসমুক্ত থাকার। এই বিষয়ে রইল কিছু পরামর্শ।

sananda

আমার বয়স ৩০ এবং আমার স্বামীর বয়স ৩৩। আমাদের দুজনের বিশেষ কোনও শারীরিক সমস্যা নেই। ব্লাড প্রেশার, শুগারও নর্মাল। কিন্তু কয়েক বছর চেষ্টার পরেও আমি কনসিভ করতে পারছি না। আমরা দুজনেই কপোর্রেট অফিসে কাজ করি। কাজের প্রেশারও খুব, আর লং ওয়ার্কিং আওয়ারের কারণে দুজনেই খুব স্ট্রেসড থাকি। ফার্টিলিটি পিরিয়ডে কিছুতেই দুজনের সময় ম্যাচ করা সম্ভব হয়ে উঠছে না। পিরিয়ডের আগে-পরে ঠিক কোন সময়ে যৌনমিলনে সন্তানধারণের সম্ভাবনা সব থেকে বেশি? একটু বিস্তারিত জানালে উপকৃত হব। আজকাল শুনি স্ট্রেস থেকে বন্ধ্যাত্বর সমস্যা হতে পারে, এই ধারণা কি ঠিক? কীভাবেই বা জানব?

কস্তুরী মজুমদার,
ই-মেল মারফত

আমাদের জীবনে স্ট্রেস সব ধরনের রোগের কারণ হতে পারে। বিশেষ করে পিরিয়ডের পরিবর্তন, ওভ্যুলেশন এবং কনসিভ করা স্ট্রেসের দ্বারা ভীষণভাবে প্রভাবিত হয়। তবে সন্তানধারণে সমস্যা হলে শুধুমাত্র স্ট্রেসকে দোষ না দিয়ে গাইনিকলজিকাল কোনও সমস্যা আছে কি না তাও দেখতে হবে। প্রেগনেন্সি কবে আসবে এই নিয়ে দুশ্চিন্তায় না ভুগে ইন্টারকোর্সের সময় রিল্যাক্সড থাকার চেষ্টা করুন। পাশাপাশি প্রয়োজনীয় চিকিৎসা করালে ভাল খবরের আশা বাড়বে। মেনস্ট্রুয়াল হিস্ট্রি দেখে ফার্টিলিটি পিরিয়ড আন্দাজ করা যায়। যাঁদের নিয়মিত পিরিয়ড হয় এবং ২৮ দিনের সাইকেল তাঁদের পিরিয়ড শুরুর ১১-১৬ তম দিন সবচেয়ে বেশি ফার্টাইল। কিন্তু পিরিয়ড যদি অনিয়মিত হয় সেক্ষেত্রে এই হিসেব মিলবে না।

facebook
facebook