Monemone
Sananda fashion

ছেলে নগ্ন ছবি দেখে ফেলেছে

পুরুষের তুলনায় নারীর বাহ্যিক সৌন্দর্য এবং শারীরিক আকর্ষণ অনেক বেশি চর্চিত বিষয়। স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি মোটা অথবা রোগা মেয়েরা অনেকেই চেহারা নিয়ে হীনমন্যতায় ভোগেন।একটি আলোচনা ।

g

আমার বয়স ৩৪। পাঁচ বছর আগে আমার ডিভোর্স হয়। আমার ৭ বছরের ছেলে আছে। ছেলে আমার সঙ্গেই থাকে। আমার বিয়ের পরবর্তী অভিজ্ঞতা খুব খারাপ ছিল। আমি একটু মোটার দিকে। সন্তান হওয়ার পর চেহারা আরও খারাপ হয়ে যায়। আমার স্বামী সবসময় বলতেন আমার চেহারা খুব কুৎসিত। তাকানো যায় না। কথায় কথায় আমাকে অপমান করতেন। রোজ একই কথা শুনতে শুনতে আমি নিজেও ওই কথাগুলো বিশ্বাস করতে শুরু করি। ওই সময় আমি এতটাই হতাশ হয়ে পড়েছিলাম যে ডিপ্রেশনে পৌঁছে যাই। এরপর কয়েকবছর বছর চিকিৎসায় আমি স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসি। বাড়িতে সবাই আমায় আবার বিয়ে করার কথা বলছেন। কিন্তু নতুনভাবে সংসার করার কথা ভাবলেই ভয় হয়। পুরনো কথা মনে পড়ে। একদিন আমি বাথরুমে গিয়ে নিজের কিছু ন্যুড ছবি তুলি। ছবিগুলো দেখার পরই আমি সেগুলো ডিলিট করে দিই। একদিন আমি ল্যাপটপে ছেলের সঙ্গে বসে ওর জন্মদিনের ছবি দেখছিলাম। হঠাৎ করেই ওই ছবিগুলো স্ক্রিনেভেসে ওঠে। আমি সঙ্গে সঙ্গে ল্যাপটপ বন্ধ করে দিই। কিন্তু আমার ছেলে ছবিগুলো দেখেই হাসতে শুরু করে দেয়। এরপর থেকে আমি প্রচণ্ড অপরাধবোধে ভুগছি। খালি মনে হয় ছেলে আমার সম্পর্কে কী ভাবছে? আমি কেন এরকম কাজ করলাম? আমার ছেলের ভবিষ্যত হয়তো আমি নষ্ট করে ফেলেছি। তাছাড়া ভয় হয় ও যদি কাউকে এইসব কথা বলে দেয় তাহলে কী হবে? ওকে আমি এই ব্যাপারে এখনও কিছু বলিনি। কারণ আমি জানি ছেলেকে যদি আমি কথাটা বলতে বারণ করি তাহলে ও অবশ্যই অন্যদের তা বলবে। আমার এখন কী করা উচিত?
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

আপনার প্রাক্তন স্বামী খুবই কৌশলে আপনার মনোবল একেবারে নষ্ট করে দিয়েছেন। পুরুষের তুলনায় নারীর বাহ্যিক সৌন্দর্য এবং শারীরিক আকর্ষণ অনেক বেশি চর্চিত বিষয়। স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি মোটা অথবা রোগা মেয়েরা অনেকেই চেহার নিয়ে হীনমন্যতায় ভোগেন। চেহারা সম্পর্কে নেগেটিভ মন্তব্যের মানসিক আঘাত খুবই প্রবল। সবচেয়ে কাছের মানুষের কাছ থেকে এই আঘাত এলে মানসিকভাবে ভেঙে পড়াটা খুবই স্বাভাবিক।

যে মানুষটার থেকে আপনি চরম অপমানিত হয়েছেন এবং জীবনের অনেকগুলি বছর ডিপ্রেশনের অন্ধকারে কাটিয়েছেন, সম্ভবত আজও তাকে আপনি মন থেকে পুরোপুরি সরিয়ে দিতে পারেননি। পারলে আপনি হয়তো নিজের শরীর নিয়ে হীনমন্যতায় ভুগতেন না, আপনার নগ্ন শরীরের ছবিগুলি তুলতেন না। আপনি এখনও নতুনভাবে সংসার শুরু করা বা সম্পর্কে জড়ানো নিয়ে কনফিউশনে ভুগছেন। এই ভাবনাও সেই একই দিকে ইঙ্গিত করে। যদিও আপনার সাত বছরের সন্তান আছে। আপনি আবার বিয়ে করলে তার ভবিষ্যত কতটা সুরক্ষিত থাকবে তা অবশ্যই ভাবতে হবে। যেহেতু জন্মদাতা বাবার সঙ্গে শৈশবের শুরুতেই ওর বিচ্ছেদ ঘটেছে, নতুন একজন মানুষ ওর বাবার অভাব পূরণ করতে পারেন। আজকাল বিচ্ছেদের হার হু-হু করে বাড়ছে। এর একটা পজ়িটিভ দিক, টানাপড়েনের আর মানসিক যন্ত্রণা সহ্য করে সারাজীবন কাটাতে হচ্ছে না। সমীক্ষায় দেখা গেছে বিবাহবিচ্ছেদের পর অধিকাংশ ক্ষেত্রে দ্বিতীয় বিয়ে সুখের হয়। সন্তান মানুষ করার ক্ষেত্রে আর একজনকে পেলে আপনার সুবিধাই হবে।

আপনার ছেলে আপনার নগ্ন ছবিগুলি দেখে ফেলেছে বলে ওর মানসিক ক্ষতির যে আশঙ্কা হচ্ছে তা একেবারেই অমূলক। খুব সম্ভবত ব্যাপারটা ওর কাছে নিতান্তই মজার। যদি কখনও আপনার ছেলে এই বিষয়ে প্রশ্ন করে তাহলে ওকে বলতে পারেন আপনি ডাক্তারের কথায় ছবিগুলি তুলেছিলেন, যাতে ডাক্তার বুঝতে পারেন আপনার শরীরে কোনও টিউমার চর্মরোগ বা অনয কোনও অসুখ আছে কি না। এতে মনে হয় ও ব্যাপারটা নিয়ে আর কৌতূহল দেখাবে না।

facebook
facebook