Pathikar ranna
Sananda fashion

বাজার ভরতি ফুলকপি, অথচ পাতে পড়বে সেই আলু দিয়ে তরকারি অথবা বড়ি দিয়ে মাছের ঝোলের রূপে। স্বাদবদল করতে রইল চারটি অভিনব ফুলকপিররেসিপি। রেসিপি শেখালেন পাঠিকা মণীষা দত্ত।

g

মেথি মালাই ফুলকপি

উপকরণ: ফুলকপি ১ টা (বড় বড় টুকরো করে কাটা), মেথি ১ চামচ, কাজুবাদাম বাটা ৪ টেবলচামচ, কিশমিশ বাটা ৩ টেবলচামচ, পোস্ত বাটা ৪ টেবলচামচ, চারমগজ বাটা ৩ টেবলচামচ, নুন ও চিনি স্বাদ অনুযায়ী, দুধ আধ কাপ, সাদা তেল ২ টেবলচামচ, মাখন ১ টেবলচামচ, কসুরি মেথি ২ চামচ, কাঁচালঙ্কা বাটা ২ চামচ।

প্রণালী: ফুলকপির টুকরোগুলো গরম জলে নুন দিয়ে সামান্য ভাপিয়ে, জল ঝেড়ে তুলে সাদাতেলে ভাল করে ভেজে নিন। এবার কড়াইতে মাখন ও সাদাতেল গরম করে, তাতে মেথি ফোড়ন দিন। মেথি লালচে হয়ে এলে তেল থেকে তুলে নিন। ওই তেলে কাজুবাটা, পোস্তবাটা, চারমগজবাটা, কিশমিশ বাটা, কাঁচালঙ্কা বাটা দিয়ে কষান। ভেজে রাখা ফুলকপির টুকরোগুলো দিয়ে স্বাদমতো নুন ও চিনি মেশান। দুধ দিন। ফুটে উঠে মাখা মাখা হয়ে এলে নামিয়ে ওপর থেকে কসুরি মেথি ছড়িয়ে পরিবেশন করুন।

- – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - –

ফুলকপির শাম্মি কাবাব

উপকরণ: বড় সাইজ়ের ফুলকপি ১টা (গ্রেট করা), ছোলার ডাল ১৫০ গ্রাম (ভিজিয়ে শুকনো করে বাটা), ধনেপাতা কুচি ৩ চামচ, কাঁচালঙ্কা কুচি ২ চা-চামচ, রসুন কুচি ১ চামচ, আদাবাটা ১ চামচ, পেঁয়াজ কুচি আধকাপ, গোলমরিচগুঁড়ো ১ চা-চামচ, হলুদগুঁড়ো আধ চা-চামচ, গ্রেট করা চিজ় আধ কাপ, নুন ও চিনি স্বাদমতো, ভাজার জন্য সাদা তেল।

প্রণালী: কড়াইতে সামান্য তেল গরম করে, পেঁয়াজকুচি ও রসুনকুচি ভাজতে দিন। ভআজা ভাজা হলে তাতে আদাবাটা, হলুদ, গ্রেট করা ফুলকপি, ডালবাটা, আন্দাজমতো নুন, চিনি, কাঁচালঙ্কা কুচি দিয়ে ভালভাবে কষিয়ে নামিয়ে নিন। এতে ধনেপাতা কুচি এবং গোলমরিচগুঁড়ো মিশিয়ে ঠান্ডা করে নিয়ে ছোট ছোট বলের আকারে গড়ে নিন। মাঝে অল্প করে চিজ় ভরে নিন। তাওয়ায় অল্প তেল দিয়ে এপিঠ ওপিঠ ভেজে নিলেই তৈরি শাম্মি কাবাব।

- – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - –

ফুলকপির পোলাও

উপকরণ: আতপ চাল (গোবিন্দভোগ) ৪ কাপ, ফুলকপি ১টা বড় সাইজ়ের (ছোট করে কাটা), গাজর কুচি ২ টো, কড়াইশুটি ১ কাপ, তেজপাতা ২টো, গোটা জিরে এক চা-চামচ, গোটা গরম মশলা ১ চামচ, গোলমরিচগুঁড়ো ২চা-চামচ, কাজুবাদাম ৮-১০ টা, কিশমিশ ১০-১২টা, হলুদগুঁড়ো ১চা-চামচ, নুন ও চিনি স্বাদমতো, ঘি ২ টেবল চামচ, দুধ ১ কাপ, জল ৭ কাপ।

প্রণালী: কড়াইতে ঘি গরম করে তেজপাতা, গোটা জিরে, গোটা গরমমশলা ফোড়ন দিয়ে ফুলকপি, গাজর, কড়াইশুটি ও নুন দিয়ে ভাল করে ভেজে নিন। এতে ধুয়ে রাখা চাল দিয়ে সামান্য হলুদ এবং চিনি দিয়ে ভালভাবে মিশইয়ে নিন। জল এবং দুধ দিয়ে সিদ্ধ হতে দিন। জল শুকিয়ে গেলে কিছুক্ষণ আঁচে রেখে, নামিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন।

- – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - –

ক্ষীর ফুলকপি

উপকরণ: ছোট ফুলকপি ১টা (ছোট টুকরো করে কাটা), দুধ ২ লিটার, চালের গুঁড়ো ৩ টেবলচামচ, ছোট এলাচ ৫-৬ টা, চিনি আধ কাপ, খোয়াক্ষীর ২০০ গ্রাম, খেজুরের গুড় ১০০ গ্রাম, ঘি ২চামচ, কাজুবাদাম ১০-১২ টা, কিশমিশ ৮-১০টা।

প্রণালী: কড়াইতে ঘি গরম করে ফুলকপির টুকরোগুলো হাল্কা ভেজে নিন। গ্যাসে দুধ গরম হলে ফুলকপি ভাজা এবং ছোট এলাচ দিয়ে ফুটতে দিন, যতক্ষণ না ফুলকপি সিদ্ধ হয়। এবার এতে অল্প অল্প করে চালের গুঁড়ো মিশিয়ে নাড়তে থাকুন। স্বাদমতো চিনি এবং গ্রেট করা খোয়াক্ষীর দুধে মেশান। দুধ ঘন হয়ে এলে এতে গুড় মিশিয়ে আঁচ থেকে নামিয়ে ঠান্ডা করে কাজুবাদাম ও কিশমিশ ওপরে ছড়িয়ে পরিবেশন করুন।

travel
facebook
facebook