Pathikar ranna
Sananda fashion

ঠান্ডা ঠান্ডা শরবতের
প্রবল গরমের দিনে ঠান্ডা ঠান্ডা শরবতের থেকে ভাল আর কীই বা হতে পারে? তৃষ্ণারও অবসান আবার আত্মার সন্তুষ্টিও বটে। চারটি লোভনীয় শরবতের রেসিপি। নানা ধরনের ঠান্ডা ঠান্ডা শরবতের রেসিপি শেখালেন
সুলেখা ভদ্র

g

এই গরমে প্রাণ ঠান্ডা করতে শরবত ছাড়া আর গতি কী! চা-কফির প্রতি যতই ভালবাসা থাকুক না কেন, বছরের এই সময়টায়, বিশেষত দিনেরবেলায় ঠান্ডা ঠান্ডা শরবতের থেকে আরামের বোধ হয় আর কিছু হতে পারে না। আর শুধু নিজেদের জন্যই তো নয়। ধরুন বাড়িতে অতিথি সমাগম। চা-কফির থেকে এই সময় শরবতই যে তাঁদের বেশি তুষ্ট করবে, সে ব্যাপারেও কোনও সংশয় নেই। আম, লিচু থেকে শুরু করে ছাতু কিংবা তেঁতুল, গরম থেকে তৃপ্তি দিতে সকলের জন্য রইল চারটি শরবতের রেসিপি।

ম্যাঙ্গো লস্যি

উপকরণ: পাকা আম ২টো, টকদই ৩০০ গ্রাম, চিনি ১ কাপ, বরফের টুকরো কয়েকটা, এলাচগুঁড়ো ১ চা-চামচ, আমন্ডকুচি ৩ টেবলচামচ, কাজুবাদামকুচি ৩ টেবলচামচ, নুন স্বাদমতো, কেশর সামান্য, দুধ সামান্য।

প্রণালী: দুধে কেশর ভিজিয়ে রাখুন। মিক্সারে খোসা ছাড়ানো আমের টুকরো, খানিকটা কাজুবাদামকুচি, খানিকটা আমন্ডকুচি এবং চিনি ভালভাবে মিশিয়ে নিন। সামান্য নুন দিয়ে টকদই আলাদাভাবে ফেটিয়ে রাখুন। পরিবেশন করার গ্লাসে দই ঢেলে খানিকটা আমের মিশ্রণ দিন। কয়েকটি বরফের টুকরো মিশিয়ে ভালভাবে নেড়ে নিন। উপর থেকে অল্প আমন্ডকুচি এবং কাজুবাদামকুচি ছড়িয়ে দুধে ভেজানো কেশর ছড়িয়ে ফ্রিজে রেখে দিন। ঠান্ডা ঠান্ডা পরিবেশন করুন।

লিচি লেমোনেড

উপকরণ: লিচু ২০০ গ্রাম, পাতিলেবু ৩টে, চিনি ২ কাপ, পুদিনাপাতা ১০-১২টা, বরফের টুকরো বেশ কয়েকটা, গোলমরিচগুঁড়ো ১ চা-চামচ।

প্রণালী: লিচু খোসা ছাড়িয়ে বীজ বের করে রাখুন। ব্লেন্ডারে লিচু, পুদিনাপাতা এবং চিনি দিয়ে ব্লেন্ড করে নিন। এই মিশ্রণ ফ্রিজে আলাদাভাবে রেখে দিতে পারেন। প্রায় এক সপ্তাহ ভাল থাকবে। পরিবশনের সময় বের করে নিন। গ্লাসে বরফের টুকরো ঢালুন। এতে খানিকটা লিচুর মিশ্রণ, ২-৩ চা-চামচ পাতিলেবুর রস, পরিমাণমতো জল এবং অল্প গোলমরিচগুঁড়ো মিশিয়ে ঠান্ডা ঠান্ডা পরিবেশন করুন।

তুলসী ইমলি

উপকরণ: পাকা তেঁতুল ১০০ গ্রাম, চিনি ২ কাপ, তুলসীপাতা ৮-১০টা, ভাজা জিরেগুঁড়ো ২ চা-চামচ, লঙ্কাগুঁড়ো ১ চা-চামচ, গোলমরিচগুঁড়ো ২ চা-চামচ, চাটমশলা ২ চা-চামচ, বিটনুন সামান্য, কাঁচা আমকুচি ২ টেবলচামচ।

প্রণালী: আলাদা আলাদা পাত্রে জল নিয়ে তাতে তেঁতুল ও তুলসীপাতা পাতা ভিজিয়ে রাখুন। অন্তত একঘণ্টা রাখতে হবে। বেশিক্ষণ রাখতে পারলে আরও ভাল। এরপর আলাদাভাবে দু’টি মিশ্রণ ছেঁকে রেখে দিন। একটি পাত্রে তেঁতুলের মিশ্রণ এবং তুলসীর মিশ্রণ ঢেলে তাতে স্বাদমতো বিটনুন, নুন, ভাজা জিরেগুঁড়ো, লঙ্কাগুঁড়ো, গোলমরিচগুঁড়ো, চাটমশলা ও স্বাদমতো চিনি মিশিয়ে নিন। চিনি গুলে যাওয়া অবধি অপেক্ষা করুন। গ্লাসে বরফ দিন। এতে শরবত ঢেলে উপর থেকে অল্প কাঁচা আমের টুকরো এবং তুলসীপাতা দিয়ে সাজিয়ে পরিবেশন করুন।

খাট্টা মিঠা ছাতুর শরবত

উপকরণ: ছোলার ছাতু ২০০ গ্রাম, পাতিলেবু ২ টো, ধনেপাতাকুচি ২ চা-চামচ, পেঁয়াজকুচি ২ চা-চামচ, লঙ্কাকুচি ১ চা-চামচ, বিটনুন ৩ চা-চামচ, জিরেগুঁড়ো (শুকনো খোলায় ভেজে গুঁড়ো করা) ২ চা-চামচ, গোলমরিচগুঁড়ো ২ চা-চামচ, বরফের টুকরো পরিমাণমতো, চিনি ২ কাপ, চাটমশলা ২ চা-চামচ।

প্রণালী: একটি পাত্রে ছাতু, বিটনুন, চিনি ভালভাবে মিশিয়ে নিন। এতে পরিমাণমতো জল ঢালুন যাতে তা শরবতের মতো হয়। ইচ্ছে হলে এই মিশ্রণ ফ্রিজেও রেখে দিতে পারেন। পরিবেশনের আগে এতে পেঁয়াজকুচি, ধনেপাতাকুচি, পাতিলেবুর রস, চাটমশলা, ভাজা জিরেগুঁড়ো, গোলমরিচগুঁড়ো মিশিয়ে নিন। পরিবেশন করার গ্লাসে বরফ ঢেলে ছাতুর শরবত ঢালুন। উপর থেকে সামান্য ধনেপাতাকুচি, লেবুর রস এবং লেবুর খোসা কুরিয়ে দিন। ঠান্ডা ঠান্ডা পরিবেশন করুন।

travel
facebook
facebook