Pathikar ranna
Sananda fashion

কাটাকুটিতে বেশ ঝামেলা থাকা সত্ত্বেও মোচার স্বাদ বাঙালির মন তথা জিভ থেকে মেটানো মুশকিল। শুধু তরকারি হিসেবেই নয়, এবার মোচাকে হাজির করলাম চারটি নতুন রূপে। রেসিপি শেখালেন সুলেখা ভদ্র।

g

মোচা চিংড়ির ভুজিয়া

উপকরণ: মোচা (কুচিয়ে রাখা) ২০০ গ্রাম, কুচো চিংড়ি ১০০ গ্রাম, পেঁয়াজকুচি ২ চামচ, আদা-রসুনবাটা ১ চামচ, আলু ১টা (ছোট করে কাটা), ধনেপাতাকুচি ২ চামচ, কাঁচালঙ্কাকুচি ১ চামচ, নুন ও চিনি স্বাদমতো, হলুদগুঁড়ো ১/২ চা-চামচ, সাদাতেল ৩ টেবলচামচ।

প্রণালী: মোচা সিদ্ধ করে জল ঝরিয়ে রাখুন। চিংড়িগুলোকে হলুদগুঁড়ো এবং নুন মাখিয়ে রাখুন। কড়াইতে অল্প তেল দিয়ে চিংড়িগুলো ভেজে তুলে রাখুন। কড়াইতে তেল দিয়ে পেঁয়াজকুচি ভাজুন। এতে আদা-রসুনবাটা দিয়ে কষুন। মশলা কষানো হলে আলুকুচি এবং সিদ্ধ মোচা দিয়ে নাড়াচাড়া করুন। একে একে লঙ্কাকুচি, হলুদগুঁড়ো এবং স্বাদমতো নুন ও চিনি মেশান। চিংড়িগুলো দিয়ে দিন। ঝুরঝুরে হয়ে এলে ওপর থেকে ধনেপাতাকুচি দিয়ে মিশিয়ে নামিয়ে নিন।

- – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - –

মোচা পোলাও

উপকরণ: মোচা (কুচি করে কাটা) ২০০ গ্রাম, গোবিন্দভোগ চাল ২০০ গ্রাম, এলাচ ২-৩টে, দারচিনি ১টা (বড়), লবঙ্গ ৩-৪টে, তেজপাতা ২টো, ঘি ৫০ গ্রাম, হলুদগুঁড়ো ১ চা-চামচ, কিশমিশ ৮-১০টা, কাজুবাদাম ৮-১০টা, এলাচগুঁড়ো ১/২ চা-চামচ, নুন-চিনি স্বাদ অনুযায়ী।

প্রণালী: চাল জলে ভিজিয়ে রাখুন। মোচাকুচি সিদ্ধ করে জল ঝরিয়ে রাখুন। কড়াইতে খানিকটা ঘি গরম করে মোচা হালকা ভেজে নিন। আবার কড়াইতে ঘি গরম করুন। এতে এলাচ, দারচিনি, তেজপাতা, লবঙ্গ ফোড়ন দিন। কাজুবাদাম, কিশমিশ দিয়ে নেড়ে জল ঝরানো গোবিন্দভোগ চাল দিয়ে দিন। একটু নাড়াচাড়া করে হলুদগুঁড়ো, স্বাদমতো নুন, চিনি এবং পরিমাণমতো জল দিয়ে ঢাকা দিয়ে রাখুন। চাল অর্ধেক সিদ্ধ হয়ে এলে অল্প ঘি এবং ভেজে রাখা মোচা দিয়ে ২ মিনিট নাড়াচাড়া করে ওপর থেকে এলাচগুঁড়ো ছড়িয়ে ঢাকা দিয়ে দিন। নামিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন।

- – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - –

মোচা কবিরাজি

উপকরণ: জোড়া মোচার ফুল ৪টি, বিরিয়ানি মশলা ১চা-চামচ, ডিম ২টো, নুন স্বাদমতো, লেবুর রস ১ চামচ, আদারসুনের রস ২ চামচ, লঙ্কাগুঁড়ো ১ চা-চামচ, গরমমশলাগুঁড়ো ১/২ চা-চামচ, ভাজার জন্য সাদাতেল।

প্রণালী: মোচার ফুলগুলো আদারসুনের রস, নুন, লেবুর রস, লঙ্কাগুঁড়ো, গরমমশলাগুঁড়ো এবং বিরিয়ানি মশলা দিয়ে মাখিয়ে বেশ কিছুক্ষণ রেখে দিন। কড়াইতে তেল গরম করুন। সামান্য নুন দিয়ে ফেটানো ডিমের গোলা ফুলগুলো ডুবিয়ে তেলে ছাড়ুন। ওপর থেকে আরও কিছুটা ডিমের গোলা ছড়িয়ে মুচমুচে করে ভেজে নিলেই তৈরি মোচা কবিরাজি।

- – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - – - –

মোচা নারকেল বড়া

উপকরণ: মোচার ভিতরের কচি অংশ ২০০ গ্রাম, নারকেল কোরানো ৫ টেবলচামচ, কর্নফ্লাওয়ার ২ টেবলচামচ, কাঁচালঙ্কাকুচি ২ চামচ, এলাচগুঁড়ো ১/২ চা-চামচ, কসুরি মেথিগুঁড়ো ১ চা-চামচ, নুন-চিনি স্বাদ অনুযায়ী, ভাজার জন্য সাদাতেল।

প্রণালী: মোচার কচি অংশ সামান্য নুন মেশানো জলে সিদ্ধ করে চটকে মেখে নিন। এতে নারকেল কোরানো, কর্নফ্লাওয়ার, লঙ্কাকুচি, এলাচগুঁড়ো, কসুরি মেথিগুঁড়ো এবং স্বাদমতো নুন ও চিনি মিশিয়ে ভালভাবে মেখে নিন। কড়াইতে সাদাতেল গরম করুন। ল্যাংচার মতো লম্বা আকারে মিশ্রণ নিয়ে লাল করে ভেজে নিন। কেচাপের সঙ্গে গরম গরম পরিবেশন করুন।

travel
facebook
facebook