Travel
Sananda fashion

পালামৌ

ছুটিতে কাছে-পিঠে বেড়াতে যেতে চান? ঘুরে আসুন ঝাড়খণ্ডের পালামৌ থেকে।

g

পলাশ-মহুয়ার দেশ পালামৌর অবস্থান ছোটনাগপুর উপত্যকার পশ্চিম প্রান্তে। পালামৌ জেলার প্রধান জেলা শহর কোয়েল নদীর তীরের ডালটনগঞ্জ। জঙ্গলে ঘেরা পালামৌ অ্যাডভেঞ্চার প্রিয় ট্যুরিস্টদের ভাল লাগবেই। ট্রেকার এবং মোটরিস্টদের জন্যে জঙ্গলে বিশেষ যাতায়াতের পথ তৈরি করা হয়েছে। প্রকৃতিকে খুব কাছ থেকে উপভোগ করার জন্যে তৈরি হয়েছে একাধিক ক্যাম্প সাইট। নেতারহাট, কেচাকি, মহুয়ামিলন, বেতলায় রয়েছে বনবাংলো যাতে অরণ্যের পশুপাখিদের খুব কাছ থেকে দেখা যায়। পালামৌ নামে ছোট্ট জায়গাটি ডালটনগঞ্জের দক্ষিণ-পূর্বে আওরঙ্গা নদীর ধারে। বহুকাল ধরেই পালামৌ-এ ছেড়ো রাজারা রাজত্ব করে গেছেন। তাঁদের তৈরি দু’টি কেল্লার ধ্বংসাবশেষ এখনও সেই ইতিহাসের সাক্ষ্য বহন করছে। প্রথমে মুঘল পরে ইংরেজরা এই কেল্লার দখল নেয়। কেল্লার দেওয়ালে কামানের গোলা এবং গুলির দাগ এখনও দেখা যায়। দু’টি কেল্লাটি ঘন জঙ্গলের মধ্যে অবস্থিত। খুঁজে দেখলে কেল্লার আশপাশে বাঘের পায়ের ছাপ দেখাতে পাওয়াও বিচিত্র নয়। নতুন কেল্লার বৈশিষ্ট্য হল অপূর্ব কারুকাজ সমৃদ্ধ নাগপুরী গেট। শোনা যায় পালামৌর রাজা মেদিনী রায় ছোটনাগপুর লুট করার পর এই দরজার আমদানি করেছিলেন। পুরানা এবং নয়া কেল্লার প্রাচীন স্থাপত্যও খুব আকর্ষণীয়। পালামৌ টাইগার রিজ়ার্ভ এখানকার অন্যতম আকর্ষণ তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। বেতলা ন্যাশনাল পার্কের এক অংশ এই রিজ়ার্ভ। যদিও এখানে বাঘের সংখ্যা খুবই কম কিন্তু অরণ্যের সৌন্দর্য আপনাকে মুগ্ধ করবে। বাঘ ছাড়াও হাতি, হরিণ, লেপার্ড, গৌড়, শম্বর এবং বুনো কুকুরের বাস এখানে। প্রায় ১৪০ প্রজাতির পাখি দেখা যায় এখানে। জঙ্গলের মধ্যে দিয়ে বয়ে চলেছে কোয়েল নদী। শাল এবং বাঁশের ঘন বনের মধ্যে দিয়ে তৈরি পথে জিপ যাতায়াত করে। তবে গাইড নিয়ে ঘোরাফেরা করাই বাঞ্ছনীয়। জঙ্গলের ওয়াচ টাওয়ারে বসেও অরণ্য উপভোগ করার সুযোগ রয়েছে।

কখন যাবেন

অক্টোবর থেকে মার্চের মধ্যে যে কোনও সময় পালমৌ যেতে পারেন। গ্রীষ্মে তাপমাত্রা ৪৭ ডিগ্রি পর্যন্ত উঠতে পারে।

কীভাবে যাবেন

ঝাড়খণ্ডে অবস্থিত পালামৌর দূরত্ব কলকাতা থেকে ৫৭১ কিমি। সরাসরি গাড়িতে গেলে ৮-৯ ঘণ্টা সময় লাগবে। সবচেয়ে কাছের এয়ারপোর্ট রাঁচি। সেখান থেকে ট্যাক্সি ভাড়া করে সরাসরি পালমৌ আসা যায়। হাওড়া-জয়সলমের সুপারফাস্ট এক্সপ্রেস বা পূর্বা এক্সপ্রেস করে ধানবাদ নেমে সেখান থেকে ট্যাক্সি বা ভাড়া গাড়ি করে পালামৌ আসতে পারেন।

কোথায় থাকবেন

পালামৌর বেতলায় বিহার স্টেট ট্যুরিজ়ম কর্পোরেশনের বাংল বন বিহার রয়েছে সব রকম সুযোগসুবিধে। যোগাযোগ:(০৬৫৬৭)২২৬৫১৩।

travel
facebook
facebook